ডিসেন্ট্রালাইজ ফিন্যান্স (DeFi) কি?

বর্তমানে ক্রিপ্টোকারেন্সি জগতে বেশ আলোচিত এক ট্রেন্ডিং হচ্ছে ডিসেন্ট্রালাইজ ফিন্যান্স (DeFi)। আমরা যারা নতুন তাদের কাছে এই ট্রেন্ডিংয়ের কারনে একটাই প্রশ্ন ডিসেন্ট্রালাইজ ফিন্যান্স (DeFi) কি?

ডিসেন্ট্রালাইজ ফিন্যান্স (DeFi) কি?

ডিসেন্ট্রালাইজ ফিন্যান্স বা (DeFi) খুব একটা জটিল বিষয় নই। বিষয়টি খুব সহজ। সহজ কথাই বলতে হলে বিকেন্দ্রিক আর্থিক পদ্ধতিই হচ্ছে ডিসেন্ট্রালাইজ ফিন্যান্স (DeFi)।

আর এই ডিসেন্ট্রালাইজ ফিন্যান্স (DeFi) ব্যস্থাকে যার উপর অর্থাৎ যে এ্যপ্লিকেশনের উপর তৈরি করা হয়েছে তাকে বলা হয় DApps বা ডিসেন্ট্রাইলাইজেশন এ্যপ্লিকেশন‌।

binance_ref_banner

এই সবই একটি স্মার্ট কন্ট্রাক্টের উপর বিল্ড করা হয়। যেমন- ইথেরিয়াম, ট্রোন বা নিও নেটওয়ার্কের স্মার্ট কন্ট্রাক্ট ইত্যাদি ।

DeFi কে জানার আগে আমরা আমাদের ট্রেডিশনাল পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করলে DeFi কি তা বুঝতে খুব সহজ হয়ে যাবে।

আরো পড়ুন: বিটকয়েন ডাবল স্পেন্ডিং কি?

সেন্ট্রালাইজ পদ্ধতি কি?

আমরা সকলেই ব্যাংকিং ব্যবস্থার সাথে পরিচিত। আমাদের দেশে যতগুলোই ব্যাংক রয়েছে সেই ব্যাংক গুলো বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়ন্ত্রনে। অর্থাৎ আমাদের দেশের ব্যাংকিং ব্যবস্থা পুরোটাই সেন্ট্রালাইজ। শুধু আমাদের দেশ নই প্রতিটি দেশের ব্যাংকিং ব্যবস্থা নিয়ন্ত্রিত হয় সেই দেশের সেন্ট্রাল ব্যাংকের মাধ্যমে।

এখন সেন্ট্রালাইজ হওয়াতে কি হচ্ছে? যখন আপনি কোন ব্যাংকিং ব্যবস্থা ব্যবহার করছেন এর অর্থ এই দাড়াই আপনার অর্থের উপর সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রন আপনার নেই। যেকোন কারন দেখিয়ে আপনার ফান্ড আটকিয়ে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে ব্যাংক।

সেন্ট্রাইলাজ পদ্ধতিতে আপনার ফান্ড কিন্তু তার কর্তৃত্ব পুরোটাই আপনার হাতে না থেকে একটি থার্ড পার্টির কাছে থাকছে। যার ফলে আপনার ফান্ডের নিরাপত্তার জন্য অন্যের উপর ভরসা করতে হয়।

আর এই ব্যবস্থা থেকে বের হয়ে আসতেই DeFi এর উদ্ভব।

ডিসেন্ট্রালাইজ পদ্ধতি কি?

সেন্ট্রাইলাজ পদ্ধতির বিপরীত পদ্ধতিই হচ্ছে ডিসেন্ট্রালাইজ পদ্ধতি। ডিসেন্ট্রালাইজ ফাইন্যান্স যেখানে আপনার ফান্ড এবং সম্পূর্ন নিয়ন্ত্রন আপনার হাতে। যেখানে অন্য কোন থার্ড পার্টির নিয়ন্ত্রন নেই আপনার ফান্ডের উপর। আপনার ফান্ডের নিরপত্তা বা নিয়ন্ত্রনের জন্য যেখানে অন্যের উপর নির্ভর করার কোন প্রয়োজন নেই।

ডিসেন্ট্রালাইজ ফিন্যান্স (DeFi) এর বৈশিষ্ট্য

DeFi খুবই একটি নতুন সংস্করন ব্লকচেইন জগতে। DeFi এর বৃহৎ ৩টি বৈশিষ্ট্য হচ্ছে:

১. আর্থিক ব্যাংকিং ব্যবস্থা তৈরি করা (স্ট্যাবল কয়েনের উপর)।

২. পার্সন টু পার্সন বা সমষ্টিগতভাবে কর্য বা ঋণ সুবিদা প্রদান করা।

৩. অত্যাধনিক ফাইন্যান্সিয়াল পদ্ধতি যেমন ডেক্স (ডিসেন্ট্রালাইজ এক্সচেন্জ), টোকেনাইজেশন প্লাটফর্ম, বিকেন্দ্রিক এবং প্রেডিকশন মার্কেট সক্ষম করা তুলা।

বর্তমানে DeFi বা ডিসেন্ট্রালাইজ ফাইন্যান্স বেশি জনপ্রিয় হওয়ার কারন হচ্ছে এখানে আপনি কোন প্রকার মধ্যবর্তী বা থার্ডপার্টি ছাড়াই সরাসরি কর্য বা ঋণ সুবিদা গ্রহন করতে পারেন।

DeFi কিভাবে কাজ করে?

DeFi ব্লকচেইনের মাধ্যকে কাজ করে। আর এই DeFi কে ড্যাপস্‌ বা ডিসেন্ট্রাইলজ এ্যপ্লিকেশন এর দ্বারা একটি স্মার্ট কন্ট্রাক্টের উপর তৈরি করা হয়ে। যা পর্ব নিদ্ধারিত একটি সিষ্টেমের দ্বারা পরিচালিত হয়। এখানে কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান এর উপর কর্তৃত্ব রাখে না। এক কথায় পদ্ধতিটি সংক্রিয় (অটোমেটিক)।

হ্যাঁ কোন কিছুর উন্নয়নের জন্য ডেভলপাররা সেই নেটওয়ার্কের উপর কাজ করে ডেভলপ করতে পারে। তবে তার উপর নিয়ন্ত্রন খাটাতে পারে না।

এক কথায় DeFi হচ্ছে সস্পূর্ণ একটি স্বাধিন অর্থনৈতিক ব্যবস্থা। এখন দেখার বিষয় এটি বিশ্বকে কত দ্রুত এক প্লাটফর্মে নিয়ে আসতে পারে।

ডিসেন্ট্রালাইজ ফিন্যান্স (DeFi) এর ভবিষৎ

যেহেতু মানুূষ স্বাধীনতা পছন্দ করে বিশেষ করে আর্থিক ক্ষেত্রে বিষয়টি একিবারে কঠিন, বর্তমান পদ্ধতিতে। যার ফলে DeFi বা ডিসেন্ট্রালাইজ ফাইন্যান্স এর ভবিষৎ উজ্জল হওয়ার সম্ভাবনা অনেক। যদিও এই পদ্ধতি খুবই নতুন, যা আরো ডেভালপ করা প্রয়োজন আছে।

যেহেতু মানুষকে তাদের আর্থিক বিষয়ে কোন থার্ড পার্টির উপর নির্ভর করার কোন প্রয়োজন নেই এই পদ্ধতি ব্যবহার করার ফলে। তাই সহজেই এটি অনেকের কাছে বেশ জনপ্রিয় হতে শুরু করেছে। তার প্রমান হিসেবে দেখা যায়, Link, Lend, Maker ইত্যাদি।

DeFi সম্পকৃত টোকেন গুলোর দিকে নজর দিতে কিছু গুরুত্বপূর্ণ সাইটে চোখ রাখতে পারেন:
https://dappradar.com/defi
https://defipulse.com/
https://defimarketcap.io/

মোটামুটি এইছিলো আজকের আলোচনা। বিষয়টি খুবই সংক্ষিপ্ত আকারে তুলে ধরে হলে। তাই হয়তো অনেকের কোন প্রশ্ন থাকতেও পারে। কোন প্রকার প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো।

এছাড়া ক্রিপ্টোকারেন্সি নিয়ে অন্য যেকোন ধরনের আলোচনা করার জন্য বাংলাদেশ ক্রিপ্টো কমিউনিটিতে যোগ হয়ে থাকতে পারেন: https://t.me/Bangla_Cryptocurrency

আর বাইন্যান্স সম্পর্কিত আলোচনার জন্য আমাদের বাংলাদেশ বাইন্যান্স কমিউনিটিতে যোগ হতে পারেন: https://t.me/BinanceBangladeshi

সতর্কতাঃ- ফরেক্স ও ক্রিপ্টোকারেন্সি মার্কেট অধিক ভলটালিটির কারনে ট্রেডিং করা অনেক বেশি বিপদজনক। তাই এই পোষ্টে কাউকে এই মার্কেটে ট্রেড করার জন্য উৎসাহিত করা হচ্ছে না। যদি কেউ ট্রেড করতে চাই, তবে তা সে নিজের দায়িত্বে করবে, এর জন্য এই ব্লগের কর্তৃপক্ষ দায়বদ্ধ থাকবে না।

মন্তব্য