মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট ব্যবহার গাইড

‘মাল্টিসিঙ্গনেচার কি’ ওয়ালেট ‘সিংঙ্গেল কি’ ওয়ালেটের চেয়ে অধিক নিরাপদ। যা এর আগে আমরা মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট কি? সেখানে আলোচনা করেছি।

আজ আমরা মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট তৈরি করা এবং তা দিয়ে কিভাবে লেনদেন করবেন সেই বিষয়ে আলোচনা করবো।

এখানে মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট তৈরির জন্য আমি ইলেক্ট্রাম ওয়ালেটকে বেছে নিব। আপনি যদি সর্বউত্তম ৭টি বিটকয়েন ওয়ালেট টপিকটি পড়ে থাকেন তবে দেখবেন আমি সেখানে ইলেক্ট্রামকে দ্বিতীয়তে পছন্দের ওয়ালেট হিসেবে বর্ণনা করেছি।

binance_ref_banner

আপনার যদি ইলেক্ট্রাম ওয়ালেট ইন্সটল করা না থাকে তবে এখানে থেকে ডাউনলোড করে ইন্সটল করে নিতে পারেন।

মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট তৈরি

আপনার ইলেক্ট্রাম ওয়ালেট ডাউনলোড করা সম্পূর্ণ হলে তা ইন্সটল করুন। এর পর আপনার ইলেক্ট্রাম সফ্টওয়্যারটি ওপেন করে ওয়ালেট তৈরি করুন।

মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট ব্যবহার গাইড

ওয়ালেটের একটি নাম দিয়ে Next করুন।

মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট ব্যবহার গাইড

আমরা যেহেতু মাল্টিসিঙ্গনেচার কি ওয়ালেট তৈরি করবো তাই Multi-signature wallet টি বাছায় করে Next করুন।

From cosigners : কয়টি ওয়ালেট করবেন।
Require signatures : সর্ব নিম্ন কয়টি ওয়ালেটের সিঙ্গনেচার প্রয়োজন ট্রানজেকশনের জন্য।

মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট তৈরি

From 3 cosigners এর অর্থ তিনটি ওয়ালেট তৈরি হবে এবং Requre 2 signatures এর অর্থ এই ওয়ালেট থেকে লেনদেন করতে হলে সর্ব নিম্ন ২ টি ওয়ালেট থেকে সিঙ্গনেচার প্রয়োজন হবে।

মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট তৈরি

Create a new seed দিয়ে Next

005-multisig-legacy

Legacy বাছায় করে Next

006-multisig-generate-seed

এখানে আপনাকে যে সিডটি দেওয়া হবে তা খুব সুরক্ষিত জায়গায় সেভ করে রাখুন। আর অবশ্যই এই তথ্য গুলো একাধিক জায়গায় সেভ করে রাখবেন। সেভ করা হলে Next করুন এবং পরবর্তী অপশনে আপনি সিডটি সংরক্ষন করেছেন কিনা তা যাচাইয়ের জন্য কনফার্ম করবে। পরবর্তী অপশনে আপনার সিডটি দিয়ে আবার Next করবেন।

008-multisig-wallet-masterk

এবার এখানে আপনাকে মাস্টার পাবলিক কি দেওয়া হবে। এটিও সুরক্ষিত জায়গায় সংরক্ষন করুন। আবার Next করুন।

009-multisig-cosign

এই অপশনে এসে আর Next করার প্রয়োজন নেই। এখন আপনি ক্রস চিহ্নে ক্লিক করে ইলেক্ট্রাম সফ্টওয়্যারটি কটে দিন।

এখন আবার নতুন করে একই পদ্ধতিতে আরো দুইটি ভিন্ন ভিন্ন নাম দিয়ে দুইটি ওয়ালেট তৈরি করুন।

এতক্ষন পর্যন্ত সব ঠিকঠাক করতে পারলে আমাদের মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট তৈরি হয়ে গিয়েছে। এখন এই ওয়ালেট গুলোকে একটির সাথে অপরটির জয়েন্ট করতে হবে।

আরো পড়ুন: NFT বা নন-ফানজিবল টোকেন কি?

মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট যোগ করা

৩টি ওয়ালেট একই পদ্ধতিতে তৈরি করা হয়ে গেলে, আবার ইলেক্ট্রাম সফ্টওয়্যারে ক্লিক করে যেকোন একটি ওয়ালেটে লগিন করুন। লগিন করার জন্য আবার প্রথমের মতো ওয়ালেটের নাম চাইবে। এই ক্ষেত্রে আপনি ধরুন প্রথম ওয়ালেটের নাম দিলেন Multisig_1 এর পর নেক্সট করে > Multi-signature wallet > মাল্টি ইউজার হিসেবে ৩জন এবং সিঙ্গনেচার ২ করে আবার নেক্সট করুন।

পরের অপশনে আমরা Create a new seed এর পরিবর্তে I already have a seed বাছায় করে প্রথম ওয়ালেটের জন্য আমাদের তৈরি কৃত আগের ওয়ালেটের মধ্য হতে একটি ওয়ালেটের সিড দিয়ে নেক্সট করবো। এরপর আমাদেরকে সেই ওয়ালেটের মাস্টার পাবলিক কি দেখাবে। যেহেতু আমাদের কাছে আগে থেকেই তা আছে তাই নেক্সট করে পাসওয়ার্ড দিয়ে আপনার ওয়ালেটটি ইনক্রিপ্টেড করে নিন।

015-multisig-wallet-encrypt

পাসওয়ার্ড সেট হলে আমাদের সামনে ওয়ালেটের ইন্টারফেস চলে আসবে। এখন এই ওয়ালেটের সাথে বাকি আরো ২টি ওয়ালেটকে জয়েন্ট করতে হবে।

এবার ইলেক্ট্রাম ওয়ালেটের File থেকে New/Restore ওয়ালেটের ২য় নাম দিয়ে Next করুন।

017-multisig-wallet-join

যেহেতু আমরা মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট যোগ করবো তাই, এখানে Multi-signature wallet বাছাই করে Next করুন।

018-multisig-wallet-joined-

পূর্বের নিয়ম অনুসারে ৩/২ বাছায় করে করে Next করুন।

019-multisig-wallet-joined-

এখানে I already have a seed বাছায় করে Next করুন।

020-multisig-wallet-joined-

আপনার ওয়ালেটে সিড দেওয়ার পরে Next করলে সেই ওয়ালেটের মাস্টার পাবলিক কি দেখাবে। যেহেতু সেই কি আমাদের কাছে পূর্বেই রয়েছে তাই নতুন করে সেভ করার দরকার নেই। আবার Next করলে নিচের স্ক্রিনশটের মতো দেখাবে।

022-multising-wallet-joined

এই অপশনে আপনাকে আপনার অন্ন্যান্ন্য দুইট ওয়ালেটের মাস্টার পাবলিক কি দিতে হবে। অর্থাৎ আপনি যেহেতু এখানে ২য় ওয়ালেট প্রথম ওয়ালেটের সাথে জয়েন্ট করতে চাইছেন। তাই ১ম ওয়ালেট এবং ৩য় ওয়ালেটের মাস্টার পাবলিক কি দিতে হবে।

একই পদ্ধতিতে আপনি এখানে ৩য় ওয়ালেটি যোগ করুন।

৩টি ওয়ালেট যোগ হয়ে গেলে আপনার সামনে ইল্কেট্রাম সফ্টওয়্যারের ৩টি ইন্টারফেস উপস্থিত হবে।

সব ঠিকঠাক থাকলে, আপনি ৩টি ইন্টারফেসেই একই ওয়ালেট এ্যড্রেস দেখতে পাবেন। এর অর্থ আপনার মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট তৈরি করা সম্পূর্ণ হয়েছে। এখন আপনি যখন এই একটি ওয়ালেট থেকে কোন ফান্ড ট্রান্সফার করতে চাইবেন তখন সর্বনিম্ন দুইটি ওয়ালেটর সিঙ্গনেচার প্রয়োজন হবে।

চলুন ফান্ড ট্রান্সফারের বিষয়টিও পরিস্কার হয়ে যায়।

মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট থেকে ফান্ড ট্রান্সফার

প্রথমে চলুন নতুন তৈরি করা আমাদের মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেটে প্রথমে ডিপোজিট করি।

025-multisig-balance

এখানে দেখতে পাচ্ছেন আমাদের তিনটি ইলেক্ট্রামেই এক সাথে একই ট্রানজেকশন দেখাচ্ছে, ডিপোজিট করার পর।

এখন আমরা আমাদের এই মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট থেকে ফান্ড ট্রান্সফার করে দেখব।

026-bitcoin-send-from-multi

এখানে দেখতে পাচ্ছি আমাদের মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেটে 0.001 BTC রয়েছে।

এখন আমরা এই ব্যলেন্স ট্রান্সফার করবো।

ব্যলেন্স ট্রান্সফার করার জন্য প্রথমে Pay to অপশনে আমরা যেখানে বিটকয়েন পাঠাতে চাইছি সেই এ্যড্রেস বসিয়ে Amount এর বক্সে, কত এমাউন্ট পাঠাবো তা দিয়ে Pay বাটনে ক্লিক করবো।

027-multisig-sign-permision

যেহেতু এই ওয়ালেট মাল্টিসিঙ্গনেচার ওয়ালেট তাই আমাদের কাছে ২য় সিঙ্গনেচার চাইবে। তাই এখন এই ওয়ালেটের সিঙ্গনেচারটি এক্সপোর্ট করতে হবে।

এখন উপরের স্ক্রিনশটিতে দেখুন নিচে বাম দিকে লিখা আছে Export । এই Export বাটনে ক্লিক করে Export to file এ ক্লিক দিয়ে ফাইলটি আপনার কম্পিউটারে কোন এক জায়গায় সেভ করুন।

এখন আমাদের অন্য ২টি ওয়ালেটের যেকোন একটি ওয়ালেটে প্রবেশ করতে হবে।

028-multisig-permission-fro

এবার অন্য ওয়ালেটের ইলেক্ট্রাম সফ্টওয়্যার এর Tools >> Load transaction >> From file গিয়ে আপনার সেভ করা ফাইলটি লোড করলে উপরের মতো একটি ইন্টারফেস দেখতে পাবেন। এবার এইখানে দেখুন নিচের ডান দিকে Sign নামে একটি বাটন আছে। এখন এই Sign বাটনে ক্লিক করে তার পাশের বাটন Broadcast এ ক্লিক করুন।

029-multsig-wallet-after-br

ব্রডকাস্টে ক্লিক দেওয়ার সাথে সাথে আপনার ট্রানজেকশনটি ব্লকচেইনে এ্যড হয়ে যাবে আপনার ট্রান্সফারটি সম্পূর্ণ করার জন্য।

এরপরও বুঝতে সমস্যা হলে ভিডিওটি দেখতে পারেন।

এছাড়া ক্রিপ্টোকারেন্সি নিয়ে অন্য যেকোন ধরনের আলোচনা করার জন্য বাংলাদেশ ক্রিপ্টো কমিউনিটিতে যোগ হয়ে থাকতে পারেন: https://t.me/Bangla_Cryptocurrency

আর বাইন্যান্স সম্পর্কিত আলোচনার জন্য আমাদের বাংলাদেশ বাইন্যান্স কমিউনিটিতে যোগ হতে পারেন: https://t.me/BinanceBangladeshi

সতর্কতাঃ- ফরেক্স ও ক্রিপ্টোকারেন্সি মার্কেট অধিক ভলটালিটির কারনে ট্রেডিং করা অনেক বেশি বিপদজনক। তাই এই পোষ্টে কাউকে এই মার্কেটে ট্রেড করার জন্য উৎসাহিত করা হচ্ছে না। যদি কেউ ট্রেড করতে চাই, তবে তা সে নিজের দায়িত্বে করবে, এর জন্য এই ব্লগের কর্তৃপক্ষ দায়বদ্ধ থাকবে না।

মন্তব্য