বিন্যান্স ফিউচারস্‌ ট্রেডিং গাইড

ক্রিপ্টোকারেন্সি এক্সচেন্জ গুলোতে মূল ট্রেড সাধারনত নরমাল ট্রেডিং (সাধারন বাই/সেল) বা বিন্যান্সের ভাষায় স্পট ট্রেডিং হয়ে থাকে। তবে ট্রেডারদের চাহিদার ভিন্ন্যতা অনুযায়ী এক্সচেন্জ গুলোতেও নিত্য নতুন সুবিধা নিয়ে আসতে হয়। এরই ধারা বাহিকতাই ক্রিপ্টো ফিউচারস্‌ ট্রেডিং।

বর্তমানে আপনি বিন্যান্সে এই ফিউচারস্‌ ট্রেডিং করতে পারবেন। বিন্যান্স ফিউচারস্‌ ট্রেডিং এর জন্য ১২৫ গুন লেভারেজ দিয়ে থাকে। বিন্যান্সে ফিউচারস্‌ ট্রেডিং এর জন্য আপনার অবশ্যই একটি প্রাথমিক একাউন্ট থাকা লাগবে। বিন্যান্সের ভাষায় স্পট ট্রেডিং একাউন্ট। যেখান থেকে আপনি ফিউচারস্‌ ট্রেডিং একটিভ করার সুবিধা পাবেন। বিন্যান্সে যদি একাউন্ট না থেকে থাকে তবে এখান থেকে করে নিতে পারেন।

কেন বিন্যান্সে ট্রেড করবেন?

বিন্যান্স ক্রিপ্টোকারেন্সি এক্সচেন্জের বৈশিষ্ট্য:-

binance_ref_banner
  • অধিক ভলিউম সম্পূর্ণ একটি এক্সচেন্জ সাইট। যেই এক্সচেন্জে যত ভলিউম বেশি সেই এক্সচেন্জে ট্রেড এক্সিকিউশন তত দ্রুত। যার ফলে একচুয়েল প্রাইসে ট্রেড করা যায়।
  • সর্বচ্চ সিকিউরিটি সম্পূর্ণ একটি এক্সচেন্জ সাইট।
  • একাধিক ট্রেডিং সুবিধা। যেমন- Margin, OTC, P2P, Futures, Savings, Staking ইত্যাদি।
  • একমাত্র টপরেটেড ক্রিপ্টোকারেন্সি গুলোতে ট্রেডিং হয়ে থাকে অর্থাৎ বিন্যান্স কোন স্ক্যামিং প্রজেক্ট লিস্টেড করে না। যার ফলে স্ক্যামিং কয়েনে ইনভেস্ট করা থেকে নিরাপদ থাকবেন।
  • ২৪/৭ লাইভ সাপোর্ট।

এছাড়া এয়ারড্রপ, IEO (লান্চপ্যাড), ক্রেডিট কার্ড দিয়ে ডিপোজিট ইত্যাদি তো রয়েছেই।বর্তমানে বিন্যান্স হচ্ছে একটি টপ-রেটেড এবং অধিক ট্রাসটেড একটি ক্রিপ্টোকারেন্সি এক্সচেন্জ সাইট

তো চলনু ফিরে যায় ফিউচারস্‌ ট্রেডিংয়ের আলোচনায়।

এই পর্বে, ফিউচারস্‌ ট্রেডিং কি এবং এই ওয়ালেটে ট্রেড করাই আপনি কি কি সুবিধা পেতে পারেন তা নিয়ে আলোচনা করার চেষ্টা করবো।

ফিউচারস্‌ ট্রেডিং কি?

আমার কাছে মার্জিন ওয়ালেটের মতো করে শাব্দিক অর্থ দিয়ে ফিউচারস্‌ ওয়ালেটকে বোঝানোর মতো অর্থ আমার জানা নেই। কারন আপনারা হয়তো জানেন ফিউচারস্‌ এর বাংলা শাব্দিক অর্থ ভবিষৎ। অনেকেই বলেন একটি নির্দিষ্ট ফিউচারস্‌ প্রাইসে ট্রেড করার জন্য এই নাম করন। তবে শুধু ভবিষৎ নই কারেন্ট মার্কেট প্রাইসেও ফিউচারস্‌ ট্রেডিং করা যায়। আবার ভবিষৎ প্রাইস টার্গেটেও বেশ কিছু বৈশিষ্ট্য রয়েছে। হয়তো এই কারনেই এই নাম দেওয়া হয়েছে।

তবে যাইহোক, আমরা এর অর্থ শাব্দিক অর্থ দিয়ে নই এর বৈশিষ্ঠ্য দিয়ো বুঝার চেষ্টা করবো যে, ফিউচারস্‌ ট্রেডিং কি।

বিটকয়েন ফিউচারস্‌ কি?

বিটকয়েন ফিউচারস্‌ হচ্ছে ভবিষতে একজন ট্রেডার পূর্বনির্ধারিত একটি প্রাইসে বিটকয়েন বাই বা সেল করতে পারে। একজন বাইয়ার কোন কন্ট্রাক্ট ক্রয় করতে বাধ্য হয় যখন কন্ট্রাক্টটি এক্সপায়ার হয়ে যায়, যেহেতু সেলার সেইটা সেল করতে বাধ্য হয়।

কথাটা খুব জটিল হয়ে গেল তাই না? কিছু কিছু জিনিষকে সহজ করে বুঝতে সহজ ভাষা আর সহজ উদাহরন দরকার।

চলুন না, ফিউচারস্‌ ট্রেডিংয়ের “ট্রেডিং রাস্তা” ধরে হেঁটে দেখি। বিষয়টা সহজ করে দেখা যায় কি না?

বিন্যান্স ফিউচারস্‌ ট্রেডিং

বিন্যান্সে ফিউচারস্‌ ট্রেডিং শুরু করতে একটি একাউন্ট দরকার। একাউন্ট করা সম্পূর্ণ হলে। পারত: পক্ষে একাউন্টি ভেরিফাই করে নিবেন এবং সিকিউরিটি গুলো একটু টাইট করে নিবেন। বিশেষ করে ক্রিপ্টোকারেন্সি এক্সচেন্জে ট্রেডিং একাউন্ট খোলার সময় কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের দিকে খেয়াল রাখা অতিব জরুরী। আপনি চাইলে ক্রিপ্টোকারেন্সি এক্সচেন্জ বিষয়ক গুরুত্বপূর্ন বিষয় পোষ্টটি দেখে রাখতে পারেন।

বিন্যান্স একাউন্টে লগিন করার পর ফিউচারস্‌ ট্রেডিং এর জন্য Derivatives মেনু থেকে Perpetual Futures বা Quarterly Futures অপশনে ক্লিক করুন। এখন আপনাকে ফিউচারস্‌ একাউন্ট খোলার জন্য অপশন দেখাবে। Open Now অপশনে ক্লিক করে আপনার ফিউচারস্‌ একাউন্টি খুলে নিন।

বিন্যান্স ফিউচারস্‌ ট্রেডিং ইন্টারফেস পরিচিতি

বিন্যান্স ফিউচারস্‌ ট্রেডিং গাইড futures-trading-interface
ফিউচারস্‌ ট্রেডিং ইন্টারফেস
  • ১নং অপশন থেকে আপনি ফিউচারস্‌ ট্রেডিংয়ের ওয়ালেটে যেতে পারবেন। যেখানে Perpetual Futures এবং Quarterly Futures ওয়ালেট দেখতে পারবেন।
  • ২নং অপশন থেকে Cross বা Isolated অপশন বাছায় করতে পারবেন। Cross এবং Isolated এর পার্থক্য জানতে Cross এবং Isolated মার্জিন ওয়ালেট কি? পোষ্টটি দেখতে পারেন।
  • ৩নং অপশন থেকে আপনি লেভারেজ বাড়াতে পারবেন। ডিফল্ট হিসেব 20X করা থাকে। আপনি সর্বচ্চ 125X পর্যন্ত লেভারেজ বাড়াতে পারবেন।
  • ৪নং অপশন হচ্ছে লিমিট ওর্ডার।
  • ৫নং অপশন হচ্ছে মার্কেট ওর্ডার।
  • ৬নং অপশন থেকে স্টপ লিমিট, স্পট মার্কেট এবং ট্রেলিং স্টপ ব্যবহার করতে পারবেন।
  • ৭নং অপশন থেকে ট্রেডিং পেয়ার বাছায় করতে পারবেন।
  • ৮নং অপশন থেকে ট্রেড নিতে পারবেন (বাই বা লং এবং সেল বা সর্ট)।
  • ৯নং অপশন থেকে ব্যলান্স ট্রান্সফার করতে পারবেন (স্পট ওয়ালেট টু ফিউচারস্‌ ওয়ালেট এবং ফিউচারস্‌ ওয়ালেট টু স্পট ওয়ালেট)।
  • সর্বপরি ১০ নং দ্বারা চিহ্নিত জায়গায় আপনার ট্রেডের বিস্তারিত পাবেন, যেমন-একটিভ ট্রেডি, ক্লোজ ট্রেড ইত্যাদি।

স্পট ওয়ালেট থেকে ফিউচারস্‌ ওয়ালেটে ব্যলান্স ট্রন্সফার

ফিউচারস্‌ ওয়ালেট এবং স্পট ওয়ালেট আলাদা আলাদা ট্রেডিং ওয়ালেট। সেই জন্য ফিউচারস্‌ ওয়ালেটে ট্রেড করার জন্য আপনাকে স্পট ওয়ালেট থেকে ফিউচারস্‌ ওয়ালেটে ব্যলান্স ট্রন্সফার করতে হবে। ব্যলান্স ট্রন্সফার করার জন্য “ফিউচারস্‌ ট্রেডিং ইন্টারফেস” এর স্ক্রিনশটের ৯নং দ্বারা চিহ্নিত Transfer অপশন ব্যবহার করতে হবে।

এই Transfer অপশন ব্যবহার করে আপনি স্পট ওয়ালেট থেকে আপনার ফিউচারস্‌ ওয়ালেটে ব্যলান্স আনতে পারবেন। অপর পক্ষে ফিউচারস্‌ ওয়ালেট থেকে স্পট ওয়ালেটে ব্যলান্স ট্রন্সফার করতে পারবেন।

বিন্যান্সে ফিউচারস্‌ লেভারেজ ট্রেডিং

ফিউচারস্‌ ট্রেডিংয়ের মূল বৈশিষ্ট্যই হচ্ছে লেভারেজ ট্রেডিং। যারা ইতিপূর্বে ফরেক্সে ট্রেড করেছেন বা করেন। তারা খুব সহজেই লেভারেজ বুুঝে থাকবেন।

সর্ব উপরের যে স্ক্রিনশটটি দেওয়া হয়েছে সেই স্ক্রিনশটের ৩নং দ্বারা চিহ্নিত ঘরটি লেভারেজের ঘর। আমি আগেই বলেছি এই লেভারেজ 20X ডিফল্ট হিসেবে সেট করা থাকে। লেভারেজ বাড়ানোর জন্য 20X অপশনে ক্লিক করে 125X পর্যন্ত বাড়িয়ে নিতে পারবেন। তবে, মনে রাখবেন যত বেশি লেভারেজে ট্রেড করেবেন ততবেশি প্রফিট এবং লসের সম্ভাবনা বেড়ে যাবে।

ফিউচারস্‌ ট্রেডিংয়ে বাই/সেল

ফিউচারস্‌ ট্রেডিংয়ে অপর আরেকিট মজার বৈশিষ্ট্য হচ্ছে আপনি যে কোন পজিশনে থেকে প্রফিট করতে পারেন। যেমন আপনি যখন স্পট ওয়ালে ট্রেড করেন তখন শুধূ মাত্র মার্কেট উর্ধমুখী হলেই আপনি প্রফিট করতে পারেন। কিন্তু যখন মার্কেট নিম্নমুখী হয় তখন আপনাকে লসের হিসেব গুনতে হয়।

আর ফিউচারস্‌ ওয়ালেটে ট্রেড করে আপনি মার্কেটের উর্ধমুখা বা নিম্নমুখী উভয় অবস্থাতেই প্রফিট করতে পারেন। চলনু একটি উদাহরন দিয়ে ফিউচারস্‌ ট্রেডিংয়ের বাই/সেল সহকারে বেসিক সকল বিষয় গুলো কাভার করার চেষ্টা করি।

এখানে আমি আমার বাইন্যান্স ফিউচার একাউন্টে স্পট ওয়ালেট থেকে ডিপোজিট করার জন্য Derivatives মেনু থেকে Quarterly Futures ক্লিক দিয়ে ফিউচারস্‌ ট্রেডিং ইন্টারফেসে প্রবেশ করলাম। এখান থেকে আমি Transfer অপশনে ক্লিক করে 0.001 BTC ট্রান্সফার করলাম।

balance-transfer
স্পট ওয়ালেট থেকে ফিউচারস্‌ ওয়ালেটে ব্যলান্স ট্রন্সফার

বর্তমান BTC মুভমেন্টের এ্যনালাইসিস করে এখন আমরা একটি ট্রেড নিব। ট্রেড নেওয়ার আগে আমি কত লেভারেজ নিয়ে ট্রেড করতে চাই তা সেট করে দিব। প্রাথমিক অবস্থায় আপাতোতো এখানে ১৫ লেভারেজ সেট করে Confirm করবো। নতুন অবস্থায় কম লেভারেজে ট্রেড করাই উত্তম। পরবর্তীতে আপনার স্কীল অনুযায়ী লেভারেজ বাড়িয়ে ট্রেড করতে পারেন।

leverage-set
লেভারেজ সেট করা

এখনে আবারো বলে রাখি। ফিউচারস্‌ একাউন্টে বাই বা সেল দুইটি থেকেই প্রফিট করা যায়। আমি এখন যদি বাই করি এবং মার্কেট আমারে ট্রেডের পক্ষেই যায় অর্থাৎ BTC প্রাইস বাড়তে থাকে তবে আমার ট্রেডও প্রফিট হবে। কিন্তু আমি BTC বাই বা লং ট্রেড নেওয়ার পর প্রাইস ডাউন হলে, আমার ট্রেডটি লসের দিকে যাবে।

অপরপক্ষে আমি যদি BTC সেল বা সর্ট ট্রেড নেই এবং মার্কেটও ডাউন হয় অর্থাৎ BTC প্রাইস কমতে থাকে, তবে সেই ট্রেডও আমার প্রফিট হবে। কিন্তু আমি BTC সেল বা সর্ট ট্রেড নেওয়ার পর BTC প্রাইস বাড়তে থাকে, তবে আমার ট্রেডটি লসের দিকে যাবে।

সহজ কথায় আমি ট্রেডে যে পজিশন নিব তার পক্ষে মার্কেটে মুভ করলে প্রফিট হবে আর বিপক্ষে মুভ করলে লস হবে।

ওর্ডার টাইপ (Limit/Market/Stop-Limit/Stop Market/Trailing Stop

বিন্যান্স ফিউচারস্‌ ট্রেডিংয়ে আপনা ওর্ডার টাইপে ৫ ধরনের ওর্ডার টাইপ পাবেন।

Limit Order: আপনি এই অপশন ব্যবহার করে আপনার পছন্দ অনুসারে নির্দিষ্ট প্রাইসে ওর্ডার দিতে পারবেন। আপনার ওর্ডার তখনই ফুলফিল হবে, যখন আপনার দেওয়া প্রাইসে মার্কেট পৌছাবে।

limit-order
লিমিট ওর্ডার

Market Order: আপনি যেসময়ে ট্রেড করবেন তখন মার্কেটের চলতি প্রাইস, ইংরেজি ভাষাই বুঝাতে যাকে বেস্ট প্রাইস বলা হয়। সেই বেস্ট প্রাইসে ট্রেড নেওয়াকে মার্কেট ওর্ডার বলা হয়। মার্কেট ওর্ডারে ট্রেড করার সময় আপনাকে আলাদেভাবে প্রাইস বসাতে হবে না। শুধু মাত্র কত এমাউন্ট “বাই” বা “সেল” করতে চান তা বসালেই হবে।

নিচের স্ক্রিনশটটিতে দেখতে পাচ্ছেন এখানে শুধু এমাউন্টের ঘর রয়েছে। প্রাইসের বসানোর জায়গা নেই। কারন আপনার ওর্ডারটি তাতক্ষনিক মার্কেট প্রাইসে “বাই” বা “সেল” করতে পারবেন।

market-order
মার্কেট ওর্ডার

Stop-Limit: স্টপ লিমিট এক প্রকার কনডিশনাল ট্রেড। স্টপ লিমিট ওর্ডার তখনই ফুলফিল হবে যখন আপনার ওর্ডারটি স্টপ প্রাইসে হিট করবে। আপনার ওর্ডারটি স্টপ প্রাইসে হিট করলে, স্টপ লিমিট ওর্ডারটি লিমিট ওর্ডারে কনভার্ট হয়ে বাই বা সেল হবে লিমিট প্রাইসে বা বেস্ট প্রাইসে।

বেশি জটিল করে নই, একটু নরমাল্লি ভাবে বিষয়টি নেন। এখানে নিচের স্ক্রিনশটটি খেয়াল করুন। ২নং দ্বারা যে Trigger Price কে দেখানো হয়েছে, তা হচ্ছে স্টপ প্রাইস বাসানোর ঘর। আর ৩নং দ্বারা যে Price এর ঘর দেখানো হয়েছে তা হচ্ছে স্টপ লিমিট প্রাইসের ঘর।

মনে করুন $10200 একটি রেসিসটেন্স লেভেল যা ব্রেক করলে মার্কেট বুলিশ বা উর্ধগামী হবে বলে মনে করছেন। তাই Trigger Price (২নং) এর ঘরে $10200 বসালেন এবং Price (৩নং) এর ঘরে $10250 দিলেন। এর অর্থ দাড়ায় মার্কেট যখন $10200 হিট করবে তখন আপনার স্টপ লিমিট ওর্ডারটি নরমাল লিমিট ওর্ডারে কনভার্ট হয়ে যাবে। এবং $10250 প্রাইসে “বাই” হবে বা বেস্ট প্রাইসে।

stop-limit
স্টপ লিমিট ওর্ডার

Stop Market: স্টপ মার্কেট ওর্ডার অনেকটাই স্টপ লিমিট ওর্ডারের মতই। এই অপশনে স্টপ প্রাইসকে মার্কেট প্রাইসের ট্রিগার হিসেব ধরা হয়। এই পর্যায়ে আপনার Trigger Price (২নং) হিট করার সাথে সাথেই মার্কেট প্রাইসে বা বেস্ট প্রাইসে আপনার ওর্ডারটি ফুলফিল হয়ে যাবে।

stop-market
স্টপ মার্কেট ওর্ডার

Trailing Stop: ট্রেলিং স্টপ ওর্ডার হচ্ছে পূর্বে হতেই কোন ট্রেডকে নির্দিষ্ট একটি পার্সেন্টেজে স্টপ লস (বাস্তবিক পক্ষে প্রফিট) সেট করা। মনে করুন BTC/USD পেয়ারে 0.01 BTC এমাউন্টের একটি বাই বা লং ট্রেড নেওয়া আছে যখন প্রাইস $9000 ছিলো। বর্তমানে সেই ট্রেডটির মার্কেট প্রাইস $9500। এতএব নি:সন্দেহে আপনার ট্রেডটি প্রফিটে আছে। আপনি মনে করছেন মার্কেট আরেকটু বাড়তে পারে তাই একটি নির্দিষ্ট প্রাইসে আপনার প্রফিটের উপর একটি স্টপ লস সেট করবেন।

এখন আপনি Callback Rate (২নং) এর জায়গায় 2% দিলেন আর Activation Price (৩নং) এ $9550 দিলেন আর Amount (৪নং) জায়গায় 0.01 দিলেন। এর অর্থ দাড়ালো আপনার রানিং ট্রেডটি যখন $9550 প্রাইস হিট করবে তখন সেই প্রাইস থেকে ২% নিচে ট্রেড ওর্ডারটি অটোমেটিক একটি ক্লজ বা স্টপ লসের এন্ট্রি নিবে। প্রাইস যদি আরো আপ হয় তাহলে আপনার স্টপ লস নেওয়া এন্ট্রিটি অটোমেটিক উপরে উঠতে থাকবে। অর্থাৎ মার্কেট যতক্ষন উপরে উঠবে আপনার স্টপ লসটি মার্কেট প্রাইস থেকে ২% নিচে থাকার জন্য উপরে উঠতে থাকবে। তবে মার্কেট নিচে নামলে স্টপ লস এন্ট্রি লক হয়ে যাবে। এবং যে প্রাইসে লক হবে সেই প্রাইস মার্কেট হিট করলে আপনার ট্রেডটি নির্দিষ্ট পরিমান প্রফিটে ক্লোজ হয়ে যাবে।

trailling-stop

মোটামুটি এই ছিলো আজকের আলোচানা বাইন্যান্স ফিচারস্‌ নিয়ে। কোথাও কিছু বুঝতে সমস্যা হলে নিচের ভিডিওটি দেখতে পারেন। প্রথমেই বলেনি আমি কিন্তু প্রফেশনাল ইউটিউবার নই, তাই কথা বা ভিডিও সুন্দর করে গুছিয়ে করতে পারি না। যেকোন ভুলত্রুটি ক্ষমার চখে দেখবেন। ভিডিও দেখার পরেও বুঝতে কোথাও কোন সমস্যা হলে কমেন্ট বক্সতো খোলা আছেই আপনার জন্য দিন রাত ২৪ ঘন্টা 🙂 । তাই কমেন্টে জানাতে দিদ্ধাবোধ করবেন না।

বিন্যান্সে ট্রেড করার জন্য আপনার কোন একাউন্ট না থেকে থাকলে, আজই বিন্যান্সে একটি একাউন্ট করুন এবং বিশ্ব্যের টপ-রেটেড ক্রিপ্টোকারেন্সি এক্সচেন্জের সাথে যুক্ত থাকুন।

এছাড়া বিন্যান্স এক্সচেন্জ সম্পর্কে জানতে বা কোন জিজ্ঞাসা থেকে থাকলে অথবা বাংলাই সাপোর্ট পেতে বিন্যান্সের বাংলাদেশি অফিসিয়াল ট্রেলিগ্রাম কমিউনিটিতে জয়েন করতে ভুলবেন না।

বাংলাদেশ বিন্যান্স টেলিগ্রাম কমিউনিটি: https://t.me/BinanceBangladeshi

সতর্কতাঃ- ফরেক্স ও ক্রিপ্টোকারেন্সি মার্কেট অধিক ভলটালিটির কারনে ট্রেডিং করা অনেক বেশি বিপদজনক। তাই এই পোষ্টে কাউকে এই মার্কেটে ট্রেড করার জন্য উৎসাহিত করা হচ্ছে না। যদি কেউ ট্রেড করতে চাই, তবে তা সে নিজের দায়িত্বে করবে, এর জন্য এই ব্লগের কর্তৃপক্ষ দায়বদ্ধ থাকবে না।

মন্তব্য